এগুলো হল দারিদ্র্য, একটি বেকারত্ব এবং আরেকটি হলো পৃথিবী থেকে কার্বন–দূষণ দূরকরা।

তিনটি জিনিসকে শূন্যের কোঠায় নামিয়েআনতে আহ্বান জানিয়েছেন গ্রামীণ ব্যাংকের প্রতিষ্ঠাতা ও নোবেলজয়ী ড. মুহাম্মদইউনূস । একটি দারিদ্র্য, একটিবেকারত্ব এবং আরেকটি হলো পৃথিবী থেকে কার্বন–দূষণ দূরকরা।
বুধবার ডেনমার্কের কোপেনহেগেনেচতুর্থ গ্লোবাল উইমেন ডেলিভার কনফারেন্সে তিনি এ বিষয়গুলোতে গুরুত্ব দেন।বাংলাদেশে গ্রামীণ ব্যাংকের ক্ষুদ্রঋণের মাধ্যমে নারীদের ক্ষমতায়নসহ অন্যান্যউদ্ভাবনী অবদানের জন্য মুহাম্মদ ইউনূসকে উইমেন ডেলিভার সম্মাননা দেওয়া হয়।
‘ইনভেস্ট ইন গার্লস অ্যান্ডউইমেন-ইট পেইস’ এটাহল নিউইয়র্কভিত্তিক এনজিও উইমেনডেলিভার আয়োজিত এই সম্মেলনের মূল প্রতিপাদ্য । সম্মেলন আয়োজনে ডেনমার্ক সরকার, জাতিসংঘ জনসংখ্যা তহবিল (ইউএনএফপিএ), ইউএন-উইমেনসহ নানা সংস্থা ও সংগঠনসহায়তার হাত বাড়িয়েছে।
এভরিবডি উইনস’ শীর্ষক প্লেনারি সেশনে মুহাম্মদ ইউনূসবলেন, দারিদ্র্য মানবসমাজে বসবাস করতে পারেনা। তাকে জাদুঘরেপাঠাতে হবে। এতে নারীরা বেশি লাভবান হবে, কেননানারীরা বেশি দারিদ্র্যের শিকার।
ইউনূস বেকারত্বকে কৃত্রিম ইস্যুহিসেবে উল্লেখ করে বলেন, শিক্ষাপদ্ধতিরকারণে ছেলেমেয়েরা পড়াশোনা শেষ করে চাকরি খোঁজে। তারা ভাবে, চাকরি পাওয়াই জীবনের একমাত্রগন্তব্য। অথচ চাকরি কোনো গন্তব্য হতে পারে না। তাদের উদ্যোক্তা হতে হবে। এটিইগন্তব্য।

ইউনূসের মতে, সবাই উদ্যোক্তা হতে উদ্বুদ্ধ হলে আজথেকে ৩০ বা ৩৫ বছর পরে ছেলেমেয়েরা বেকারত্ব কাকেবলে তা বুঝতেই পারবে না।

ইউনূসের মতে, দারিদ্র্য ও বেকারত্বকে শূন্যেরকোঠায় নামানোর পাশাপাশি কার্বন–দূষণকেও শূন্যের কোঠায় নামিয়ে আনতে হবে।

তরুণ সমাজের উদ্দেশে ইউনূস বলেন, তোমরা কখনো চাকরির পেছনে ঘুরবে না।এতে সব ধরনের প্রতিভা ধ্বংস হয়ে যায়। চাকরিকে তিনি পুরোনো ফ্যাশন হিসেবেওআখ্যায়িত করেন। মুহাম্মদ ইউনূস যখন বক্তব্য দিচ্ছিলেন, তখন বিশাল মিলনায়তনে শুধু হাততালিরশব্দ।

টেকনোলজি এবং আর্থিক সহায়তা এবং সঠিকতথ্য একসঙ্গে পেলে নারীদের এগিয়ে যাওয়া সহজ হয় বলেও মুহাম্মদ ইউনূস উল্লেখকরেন।

অন্যদের মধ্যে আলোচনায় অংশ নেন আয়ারল্যান্ডেরসাবেক প্রেসিডেন্ট এবং বর্তমানে দি মেরি রবিনসন ফাউন্ডেশনের প্রেসিডেন্ট মেরিরবিনসন, ডেনমার্কের পররাষ্ট্রমন্ত্রীক্রিস্টিয়ান জেনসেন, প্ল্যানইন্টারন্যাশনালের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা এ্যানে বিরগিট এলব্রেক্টসেন, জাতিসংঘ শিশু তহবিলের নির্বাহী পরিচালকঅ্যান্থনি লেক,এরিকসনের প্রধান নির্বাহীকর্মকর্তা হেন্স ভেস্টবার্গ।

এ সম্মেলনে বিশ্বের ১৬৯টি দেশ থেকে মন্ত্রী, সাংসদ, সাংবাদিক, জাতিসংঘেরবিভিন্ন সংস্থার প্রতিনিধি, তরুণদলসহ বিভিন্ন শ্রেণি–পেশারপাঁচ হাজারের বেশি প্রতিনিধি অংশ নিয়েছেন।

সেশনের শেষ পর্যায়ে স্কুলের পোশাকগায়ে ভারতের মাপেট চামকি সবাইকে স্বাস্থ্যসম্মত শৌচাগার এবং ভালো করে হাত ধোয়ারআহ্বান জানায়।

YOUR REACTION?

Facebook Conversations



Disqus Conversations