নতুন বছর শুরু করুন কিছু নতুন উপায়ে স্বাস্থ্যগত ভাবে ভাল থাকার কৌশল।

জানা অজানা।

1. সপ্তাহে একবার শস্য বা মটরশুঁটির একটি বড় অংশ রান্না করুন

সপ্তাহে একবার শস্য বা মটরশুঁটির একটি বড় অংশ রান্না করুন

তারপর আপনি এটাকে একটি ভিত্তি হিসেবে সপ্তাহ জুড়ে সুস্থ খাবারের জন্য প্রচুর পরিমানে ব্যবহার করতে পারেন । সকালের নাস্তার জন্য একটি বড় পাত্রে একবাটি সবজির সাথে খাদ্যশস্য পরিমান মতো মিশিয়ে নিতে পারেন ।

2. কফি অথবা টি-ব্যাগ পান করুন।

কফি অথবা টি-ব্যাগ পান করুন।

কোন ক্রিম আর চিনি ছাড়াই আপনি এটা তৈরি করতে পারেন । এবং এটা আপনাকে অনুপ্রানিত করবে  ভাল কফি পান করতে। 

3. সাজ সরঞ্জাম হলো সুস্থ থাকার গোপন শক্তি উপাদান

সাজ সরঞ্জাম হলো সুস্থ থাকার গোপন শক্তি উপাদান

আপনি যদি পুষ্টিকর খাবারের বিকল্পগুলো সম্পূর্ণরূপে জানতে চান , তাহলে আপনাকে জানতে হবে , কিভাবে খাবারের পুষ্টি দীর্ঘমেয়াদী করা যায়। এবং খাবার সুস্বাস্থ্যের জন্য খাবার উপভোগ করা যায় ।

উদাহরণস্বরূপ  অর্ধেক আলুকে ভর্তা করে ফুলকপির সাথে মিসিয়ে দিন ,তার স্বাদ আলুর ভর্তার মতই থাকবে ।কিন্তু এ খাবারের শ্বেতসার কমে যাবে।

4. ভাজার পরিবর্তে শুকনো তাপে রান্না করা

ভাজার পরিবর্তে শুকনো তাপে রান্না করা

অনেক ধরনের সবজিকে উচ্চ তাপমাত্রায় রোস্টিং করলে খাবার সুস্বাদু  হয় । 

5. মাংস ছাড়া সোমবার শুরু করুন।

মাংস ছাড়া সোমবার শুরু করুন।

মাংস ছাড়াও কিন্তু নানা উপায়ে সবজি রান্না করা যায় । সবজি রোল অথবা সবজি বার্গার খেতে পারেন । যদি আপনি সবজি প্রিয় হয়ে থাকেন অন্তত সোমবার প্রচুর সবজি খাওয়ার চেষ্টা করবেন ।

6. বার অথবা পার্টি যাওয়ার পর ড্রিংক করার সময় অবশ্যই পানি মিশিয়ে নিন।

বার অথবা পার্টি যাওয়ার পর ড্রিংক করার সময় অবশ্যই পানি মিশিয়ে নিন।

কারন এটি একটি ভাল উপায়

১- সাধারণত হাইড্রেটেড থাকা । 

২-  কম তরল ক্যালরি ।

7. সপ্তাহে অন্তত একবার লাঞ্চ তৈরি করুন কাজ শেষে

সপ্তাহে অন্তত একবার লাঞ্চ তৈরি করুন কাজ শেষে

যেকোনো কিছু বানিয়ে নিতে পারেন যেমন বিশেষ করে ছুটির দিনে , ভাতের সাথে সবজি ,গাজর , শসা, চিকেন আসব খেতে পারেন ,এবং এটি খুবি স্বাস্থ্যকর আপনার শরীরের জন্য ।

8. স্মার্ট উপায়ে খাবার পছন্দ করুন ।

স্মার্ট উপায়ে খাবার পছন্দ করুন ।

সহজ উপায়ে আপনার খাদ্য তালিকাতে ১০০ ক্যালরির খাবার রাখতে পারেন , যা আপনার শক্তি যোগান দিবে । 

9. খাওয়ার আগে খাবার প্লেটে সব ধরনের সবজি নিন ।

খাওয়ার আগে খাবার প্লেটে সব ধরনের সবজি নিন ।

প্রতিদিন খাবার আগে আগে খাবার প্লেটে অবশ্যই সালাদ আইটেম রাখবেন ।

10. বেকিং রেসিপি গুলোতে অর্ধেক আটা ব্যবহার করুন।

বেকিং রেসিপি গুলোতে অর্ধেক আটা ব্যবহার করুন।

কেক অথবা কুকিজ ছাড়া আমাদের জীবন চলেই নাহ । আপনি অবাক হবেন যে , কেক অথবা কুকিজের পুরা গঠন তৈরি হয় আতা- ময়দা দিয়ে । গম থেকে তৈরি হয় আতা ,ওরস । কুকিজে থাকে ক্যালরি , ফাইবার ,প্রোটিন । আর বাদাম ও চকলেট দিয়ে অনেক কুকিজ বানানো হয় ।

11. ছোটো প্লেট ব্যবহার করুন।

ছোটো প্লেট ব্যবহার করুন।

বড় প্লেটে করে খেলে আপনার খাবার চাহিদা কমে যাবে । তাই ছোট প্লেটে করে খাবার নিয়ম করলে কয়েকবার অল্প অল্প করে খেতে পারবেন । 

12. রান্নার সময় ,ডিমের কুসুম ভেঙ্গে নিন।

রান্নার সময় ,ডিমের কুসুম ভেঙ্গে নিন।

প্রায় আমরা অমলেট খাই ,কিন্তু ডিমের কুসুমকে ভেঙ্গে ভাল করে মিশিয়ে তার সাথে অনেক ধরনের সবজি মিশিয়ে রান্না করুন ।

13. বিভিন্ন রঙয়ের সবজি ও ফলমূল খান।

বিভিন্ন রঙয়ের সবজি ও ফলমূল খান।

উজ্জ্বল রঙয়ের ফল ও সবজিতে পুষ্টিগুন বেশি এবং ভিটামিন , মিনারেলস ,এন্টি – অক্সিডেন্ট আসব থাকে । বিভিন্ন ধরনের রঙিন সবজি ও ফল খেলে পাবেন ,বিভিন্ন ধরনের পুষ্টি ।

14. বিকেলর নাস্তার সাথে শস্য বীজ এবং বাদাম রাখুন।

বিকেলর নাস্তার সাথে শস্য বীজ এবং বাদাম রাখুন।

 চিনা বাদাম , কুমড়োর বীজ ,তিল – তিসি এসবে লুকিয়ে থাকে গোপন শক্তি ।

health tips bangla health tips