কিছু উপকারি টিপস তাদের জন্য যারা দুগ্ধজাত খাবার কম খেতে চান।

জানা অজানা।

1. কয়েকটি অদুগ্ধজাত খাবার দুধের বিকল্প হিসেবে ব্যবহার করুন যতক্ষণ না আপনার প্রয়োজনীয়টা পেয়ে না যান।

কয়েকটি অদুগ্ধজাত খাবার দুধের বিকল্প হিসেবে ব্যবহার করুন যতক্ষণ না আপনার প্রয়োজনীয়টা পেয়ে না যান।

বাজারে প্রাণীজ দুধ ছাডা ও হাজারো রকমের দুধ আছে যেগুলো স্বাদের ব্যাপারে একে অন্যর চেয়ে আলাদা।এমনকি পুষ্টি মানের ব্যাপারে ও।যদি আপনি দুধের বিকল্প ক্রিমি কিছু খুঁজেন তবে দইয়ের দুধই হবে সেরা।যদি আপনি রান্নার ব্যবহারের কথা ভাবেন তবে সবাই নারিকেলের দুধকেই বেছে নেবেন।যদি প্রোটিন সমৃদ্ধ খুঁজেন তবে আপনি সয়া বেছে নিবেন।এই পোষ্টে(এখানে হাইপারলিংক) দুইজন পুষ্টিবিদের উপদেশ ও ভাবনা হতে পারে আপনার অদুগ্ধজাত খাবার বাছাইয়ের সেরা উপায়।

2. অদুগ্ধজাত দইয়ের ক্ষেত্রে ও একই কথা

 অদুগ্ধজাত দইয়ের ক্ষেত্রে ও একই কথা

দুধের বিকল্প হিসেবে অদুগ্ধজাত দই হলো সম্পর্ন ভিন্ন।আপনি যদি ব্যাপারটি সহজে নিতে না পারেন তবে আপনি ভাগ্যবান কারন কিছু ভালো লেখক সম্প্রতি চারটি ভিন্ন দুগ্ধ-মুক্ত যমুর (কাশু, সোয়া, বাদাম, এবং নারকেল)পর্যালোচনা করেছেন এবং তাদের প্রাপ্ত সঠিক তথ্য দিয়েছেন।

দেখুন কিভাবে লুকায়িত/সুপ্ত দুধের উপাদানের তালিকা খুঁজবেন।

যদি আপনি দুগ্ধকে বাদ দিতে সিরিয়াস হোন তবে আপনাকে খাবারের গায়ে ফুড লেভেল পডা শুরু করতে হবে।ছানার ঘোল,ক্যাজিন,ঘি এর মতো উপাদান(মাঝে মাঝে উপর্যুক্ত কিন্তু নিরামিষভোগীদের জন্য নয়)অবশ্যই দুগ্ধজাত।অবাক করার মতো খাবার যেমন টুনা মাছ,মধ্যহ্নভোজের মাংসের মাঝে ও দুগ্ধ থাকতে পারে।সুতরাং উপাদানগুলো চেনা এবং লেখাগুলো পডা আপনার জন্য দরকারি।এখানে(হাইপারলিংক) আপনি খাবার এবং উপাদানের একটি বিশাল তালিকা পাবেন যেগুলো দুধের প্রতি এলার্জিক লোকেরা বর্জন করতে হবে।

কখনো অয়েটারকে জিজ্ঞেস করতে ভয় পাবেন না যে মেন্যুর খাবারে দুগ্ধজাত কিছু মিশ্রিত কি না।

যদি আপনি ধারনা ও করেন খাবারে কোন দুগ্ধ নেই,খাবার অর্ডারের আগে ওয়েটারকে জিজ্ঞেস করা হবে একটা স্মার্ট চয়েস।যেমন রেস্তোরাগুলো প্রায় মাংসের টুকরোতে এক্সট্রা ফ্লেভারের জন্য মাখন যুক্ত করে।

খাবার হতে আস্তে আস্তে দুগ্ধকে বাদ দিন যদি সম্ভব হয়।

প্রাতঃরাশ শুরু করা সহজ হবে যদিজায়গা/সময় মতো আপনি পছন্দের অদুগ্ধজাত দই পেয়ে যান।যদি দুপুরের ও রাতের খাবার আপনার কাছে গুরুত্বপূর্ণ হয় তবে দুপুরের সালাদ হতে পনিরকে বাদ দিন।অথবা পায়মায় তৈয়ারি ছিটানোকে পাস্তা দিয়ে সরিয়ে দিন।

বিকল্পভাবে একেবারে শুধু একটা খাবার দিয়ে শুরু করুন।

আপনি পনির,দুধ বা মাখন দিয়ে শুরু করতে পারেন।বাজারে নামি-দামি কিছু অদুগ্ধজাত জিনিস আছে।সুতরাং একটা খাবারকে এক বেলা সরিয়ে দেওয়ার কাজে নেমে পডুন।হয়তো আপনি অনেকগুলো বিকল্প পাবেন।আপনার পছন্দের জিনিস পেয়ে গেলে তালিকায় পরবর্তীটা নিয়ে ভাবুন।

যদি আপনি এখনো মাংস খান তবে নিরামিষ রেসিপি এবং খাবার খুঁজুন।

আমিষের জায়গায় মাছ,মাংস থাকবেই।এছাডা যখন আপনি নিরামিষ রেসিপি ঘেঁটে  দেখবেন তখন আপনি সত্ত্যিই অবাক হবেন যখন আপনি পাবেন এই তিনটি উপাদান নিরামিষ,পনির।উদাহরন হিসেবে এটা অসাধারন।