যে উপায় মাছের ফর্মালিন দূর করবেন।

খাদ্য।

মাছে ভাতে বাঙ্গালী, কথাটি যেমন সত্যি, তেমনি কিছু অসাধু মানুষ খাদ্যর বিষ মিছিয়ে খাওয়াচ্ছে আপনাকে।একে বলা হয়ে থাকে ক্ষতিকর ফরমালিন। মাছ তাজা রাখতে এই অসাধু উপায় বেছে নেন অনেক ব্যবসায়ী। আর এই ক্ষতিকর ফরমালিন বিষ হয়ে প্রবেশ করে আমাদের শরীরে। তাই মাছে ফরমালিন মেশানো বন্ধ করতে না পারলেও মাছ থেকে এটি দূর করতে পারবেন খুব সহজ উপায়ে। চলুন জেনে নেই।

একটি মাছে যে পরিমাণ ফর্মালিন মেশানো তাতে একদিনেই হয়তো অনেকটা ক্ষতি হয় না, কিন্তু অনেকদিন পর ওই মাছ খেলে বিপদ আসতে বাধ্য। তাই দেখে নিন কীভাবে ঘরোয়া উপায়ে সরিয়ে ফেলবেন।

একটি মাছে যে পরিমাণ ফর্মালিন মেশানো তাতে একদিনেই হয়তো অনেকটা ক্ষতি হয় না, কিন্তু অনেকদিন পর ওই মাছ খেলে বিপদ আসতে বাধ্য। তাই দেখে নিন কীভাবে ঘরোয়া উপায়ে সরিয়ে ফেলবেন।

মাছ কিনে আনার পরে তা খুব ঠান্ডা পানিতে ধুয়ে নিন। এরপর প্রায় একঘণ্টা মাছটিকে ভিজিয়ে রাখুন সেই পানিতেই। ঠান্ডা পানির প্রভাবে মাছের শরীরের ফর্মালিন বেশ খানিকটা বেরিয়ে যা।

এরপর লবণপানিতে কিছুক্ষণের জন্য ভিজিয়ে রাখুন মাছ। লবণ মাছের শরীরের ক্ষতিকর রাসায়নিককে সহজেই বের করে আনে। এই দুই প্রক্রিয়া অবলম্বন করলেই ফর্মালিন অনেকটাই সরে যায়। তবে আরও ভালো ফল পেতে প্রথমেই চাল ধোয়া পানি দিয়ে ধুয়ে নিন মাছ। এরপর সাধারণ পানিতে ডুবিয়ে রাখুন কিছুক্ষণ। এতে সহজেই ফর্মালিন বের হয়ে যাবে।