বাংলাদেশের শীর্ষ ১০ ধনী।

দেশের খবর।

সালমান এফ রহমানঃ যিনি বাংলাদেশের ব্যাক্সিমকো গ্রুপের চেয়ারম্যান। প্রায় ৪৮০০০ হাজার লোক কাজ তার হেড অফিস ও ফ্যাক্টরিতে কাজ করছে।সালমান এফ রহমান সম্পদের পরিমাণ ৫.৫ বিলিয়ন মার্কিন ডলার। যিনি বাংলাদেশের ১০ জন ধনী বেক্তির মধ্যে সবার শীর্ষে আছেন। 

প্রিন্স মুসা বা মুসা বিন সমসেরঃ যিনি বাংলাদেশের একজন বিজনেসম্যান। তিনি ডেটকো গ্রপের চেয়ারম্যান। শুধু বাংলদেশ নয়, তিনি সারা পৃথিবীতে পিন্স মুসা নামে পরিচিত।তার মোট সম্পদের পরিমাণ ১.৫ বিলিয়ন মার্কিন ডলার। তার ৭ বিলিয়ন ডলার সুইস ব্যাংক এ আটকা পড়ে আছে।

তারেক রহমানঃ খালেদা জিয়ার পুত্র ও বিএনপির সিনিয়ন ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমান আছেন তালিকার তৃতীয় অবস্থানে। তিনি বাংলাদেশের সাবেক প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের সন্তান।তার ব্যক্তিগত মোট সম্পদের পরিমাণ ১.৫ বিলিয়ন মার্কিন ডলার বা দেড়শত কোটি মার্কিন ডলার। 

সজীব ওয়াজেদ জয়ঃ প্রধানমন্ত্রী পুত্র ও তথ্য উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয় আছেন তালিকার চতুর্থ অবস্থানে। তিনি আমেরিকা একটি আইটি প্রতিস্তানের কনসালটেন্ট । তিনি বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সুযোগ্য সন্তান। বলা যায় বাংলাদেশের বর্তমানে আইটি ক্ষেত্রে তার বিশাল অবদান রয়েছে।তার ব্যক্তিগত মোট সম্পদের পরিমাণ ১ বিলিয়ন।

আবুল হোসেনঃ তিনি একধারে একজন বিজনেসম্যান, রাজনীতিবিদ ও সাবেক মন্ত্রী ছিলেন। ১৯৭৫ সালে SAHCO international প্রতিস্তাতা করেন। গ্রুপ মোট সম্পদের পরিমাণ ১ বিলিয়ন ডলার বা একশত কোটি মার্কিন ডলার। তিনি আছেন তালিকার পঞ্চম অবস্থানে। তিনি পদ্মা সেতু কেলেঙ্কারিতে অভিযুক্ত ছিলেন। 

আহমেদ আকবর সোবাহানঃ যিনি বসুন্ধরা গ্রুপের চেয়ারম্যান  তালিকার ষষ্ট অবস্থানে। আনুমানিক ভাবে তার ব্যক্তিগত মোট সম্পদের পরিমাণ ৫০০ মিলিয়ন ডলার। 

মহিউদ্দিন খান আলমগীরঃ সাবেক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী মহিউদ্দিন খান আলমগীর আছেন তালিকার সপ্তম অবস্থানে। যিনি একাধারে একজন লেখক, অর্থনীতিবিদ ও রাজনীতিবিদ। তিনি ২০১১ সাল থেকে ২০১৩ সাল পর্যন্ত স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করেন। তারও ব্যক্তিগত মোট সম্পদের পরিমাণ ৪০০ মিলিয়ন ডলার। 

গিয়াস উদ্দিন মামুনঃ ব্যবসায়ী ও বিএনপি নেত্রী খালেদা জিয়ার পুত্র তারেক জিয়ার বন্ধু গিয়াস উদ্দিন মামুন আছেন তালিকার অষ্টম অবস্থানে। আনুমানিক ভাবে তিনি ৪০০ মিলিয়ন ডলারের মালিক। 

রাগিব আলিঃ সিলেট চা লিমিটেডের চেয়ারম্যান রাগিব আলি আছেন তালিকার নবম অবস্থানে। তার ব্যক্তিগত মোট সম্পদের পরিমাণ আনুমানিক ভাবে ২৫০ মিলিয়ন ডলার। তিনি কোহিনূর ক্যামিকেল গ্রুপ ও সাউথ ইস্ট ব্যংকের চেয়ারম্যান ছিলেন তিনি। 

ইকবাল আহমেদঃ তালিকার দশম অবস্থানে আছেন ইকবাল আহমেদ। সিমা গ্রুপের সিইও তিনি। তার ব্যক্তিগত মোট সম্পদের পরিমাণ আনুমানিক ভাবে ২৫০ মিলিয়ন ডলার।