কোথায় গেল সেই শহর(২য় পর্ব)

ঐতিহাসিক।

আজকের হারিয়ে যাওয়া শহর এর নাম আটলান্টিস। আটলান্টিস কোন শহর নয়,এটি একটি দ্বীপ।ধারনা করা হয় পৌরানিক উপকথায় এই দ্বীপের উল্লেখ আছে,সেখানে এটি সমুদ্রের তলের দ্বীপ।কিন্তু প্লেটো ৩৬০ খ্রিস্টপূর্বতে তার ডায়ালগ টাইমাউস এন্ড ক্রিয়িটাসে প্রায় ৯০০০ বছর পূর্বে হারকিউলাসের পিলারের পাদদেশে অবস্থিত ছিল এই দ্বীপটি।

পৌরানিক কাহিনীর সঠিক কোন ব্যাখ্যা না পাওয়া গেলেও প্লেটো তার ক্রিয়িটাসে এর স্পষ্ট ব্যাখ্যা দিয়ে যান।তার মতে তিনি এই দ্বীপের নাম তিনি সেলোন এর কাছে শুনেছেন।সেলোন হচ্ছে প্রাচীন এথেন্স এর একজন বিখ্যাত নীতিনির্ধারক। তিনি প্রাচীন মিশরের পুরাতন প্যাপিরাস এর পাতায় এথেন্স এর নাম এবং হায়রোগ্লাফিতে আটলান্টিস এর প্রাচীন গ্রিক ভাষায় নথিপত্র ছিল।তবে অনেক গবেষক ধারনা করেন প্লেটো এসব প্রাচীন যুদ্ধ এর কাহিনী থেকে অনুপ্রাণিত হয়ে লেখেছিল।

প্লেটোর মতবাদ অনুসারে,উন্নত জিব্রালাটার কাছেই প্রচুর উন্নত,সুশৃঙ্গল,অত্যাধুনিক এক দ্বীপ ছিল আটলান্টিস। শিক্ষা,শক্তি,খাদ্য,ঐশ্বর্য,সামরিক শক্তিতে ছিল ভরপুর এই দ্বীপ।এই দ্বীপে ছিল সোনা রুপা তামার আকরিক।দ্বীপটি স্থলপথ ও জলপথ দিয়ে সুন্দর ভাবে বিন্যস্ত।

দ্বীপের কেন্দ্রবিন্দুতে ছিল রাজপ্রাসাদ। ছোট একটি টিলার উপর প্রতিষ্ঠিত ছিল সেই প্রাসাদ।প্রাসাদ ঘিরে ছিল তিনটি খাল।আর প্রাসাদের ঠিক মাঝে ছিল একটি মন্দির।এইসব বর্ননা আছে প্লেটোর ক্রিটিয়াসে। কিন্তু প্রায় বরফ যুগের আগে প্রচন্ড ঘুর্নিঝড়,অগ্নুৎপাত এর ফলে এই দ্বীপটি সমুদ্র গহ্বরে হারিয়ে যায়।আর এই দ্বীপের অস্তিত্ব পাওয়া যায়নি।