কোথায় গেল সেই শহর।

সারাবিশ্ব।

প্রাচীন পৃথিবীর শহর আর এখনকার শহরের মধ্যে ব্যাপক পার্থক্য, এমনকি প্রাচীন সেই শহর এর এখন কোন অস্তিত্ব ও নেই।হারিয়ে যাওয়া সেই সব শহর এর বর্ননা নিয়েই শুরু করলাম নতুন আর্টিকেল "কোথায় গেল সেই শহর" এর প্রথম পর্ব।

পম্পেই

পম্পেই

অনেকেই পম্পেই নামে এই শহরটিকে চিনি না,কারন আজ থেকে প্রায় বহু বছর আগে এই শহরটি পৃথিবীর বুক থেকে চিরতরে নিশ্চিহ্ন হয়ে যায়।

ইতালির কোম্পানিয়া এর পাশেই ছোট একটি শহর ছিল পম্পেই।প্রায় অনেক লোকের ই বাস ছিল সেই শহরে।সবাই ছিল সাবলম্বী।সেই শহরের অর্থনীতি ছিল ব্যবসা নির্ভর।এই শহরের ঠিক পাশেই ছিল ভিসুভিয়াস পর্বত।তারা এই পর্বতকে শক্তিশালী মানত,এর পূজা করত।কিন্তু এই ভিসুভিয়াস পর্বত ই তাদের ধ্বংসের কারন হবে তা কেউ কখনোই টের পাইনি।

৬২ খ্রিস্টাব্দে প্রথম ইতালির এই ছোট শহর সহ তার আশপাশ এর শহরে বড় মাত্রার ভূমিকম্প অনুভূত হয়,যার ফলে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয় পম্পেই শহরের।

সতেরো বছরের মধ্যে পম্পেই নিজেকে অনেকটা গুছিয়ে নিয়েছিল ভূমিকম্প এর ধাক্কা থেকে।কিন্তু পম্পেই অধিবাসীরা বিন্দুপরিমান টের পাইনি যে এ ত মাত্র তাদের ধ্বংসের সূত্রপাত।মূল ধ্বংস লীলা ত এখন শুরু হবে।

পম্পেই

পম্পেই

৭৯ খ্রিস্টাব্দে শুরু হয় পম্পেই ধ্বংসলীলা।ঠিক কোন সময়ে এই ধ্বংসলীলা শুরু হয় তার কোন সঠিক দিন তারিখ নেই।জানেন কি এই ধ্বংসলীলার বাহক কে!!সেই ভিসুভিয়াস পর্বত।এই পর্বত থেকে নির্গত গলন্ত লাভায় ধ্বংস হয় এই নগরী।প্রায় দুই দিন ব্যাপী চলে এই ধ্বংসলীলা। সম্পূর্ন ভাবে নিশ্চন্ন হয়ে যায়ে পম্পেই নগরী পৃথিবীর বুক থেকে।প্রায় ষাট ফুট উচু ছাই আর লাভায় ধ্বংস হয় এই শহর।

পম্পেই

পম্পেই

১৬৬৯ সাল পর আবার পম্পেই নগরী পৃথিবীর আলোর মুখ দেখতে পায়।কার্লো -দি-বোরবানের আর্থিক সহায়তায় পম্পেই নগরী কে খনন করা হয়।সেখান থেকে বের হয়ে আসে অক্ষত মুর্তি,মানুষ এর কঙ্কাল।মানুষগুলো ঠিক যেভাবে ছিল আগ্নেয়গিরি হবার আগে ঠিক সেইভাবেই কঙ্কাল হয়ে ছিল।কেউ হইত দাঁড়িয়ে,কেউ হইত বসে আরো অনেকভাবে।UNESCO এই শহরটিকে পৃথিবীর ঐতিহ্যবাহী শহর হিসাবে স্থান দেয়।

pompeii