যে ৬টি বিষয় জানা থাকলে কেউ আপনাকে অপমান করতে পারবে না

আপনি একলা মানুষ আর পৃথিবীতে সবাইকে আপনি সুখী রাখতে পারবেন না। আর সবার চোখে আপনি ভালও হতে পারবেন না। মানুষ হয়ে জন্মেছেন যখন তখন কাউকে ভাল লাগবে, আবার কাউকে খারাপ। আবার এমন কেও আছেন আপনাকে অপছন্দ করছেন। আর যদি কোন কারণে অপমান করতে চায় তখন কি করবেন? চলুন দেখে নি কিছু বিষয় কোন ব্যাপার গুলো মানলে আপনাকে কেউ অপমান করতে পারবে না।

১.মেপে মেপে কথা বলুন

১.মেপে মেপে কথা বলুন

কথা এমন একটি জিনিষ যে বলে ফেল্লে ফিরিয়ে নেওয়া আর কোন উপায় নেই। যারা আপনাকে অপছন্দ করেন তারা সবসময় অপেক্ষায় থাকে কখন কি বলেবন । তাই মুখ খুলুন খুব বুজে শুনে। আর সবাই বেশী কথা পছন্দ ও করেন না। চেষ্টা করুন বেশী জানার, আর কম বলার। তাইলে দেখবেন অপমান ত দুরের কথা ধিরে ধিরে আপনি কাছে ব্যক্তিত্ব সম্পন্ন মানুষ হয়ে দাঁড়াবেন।

বেশী কথা ও অনেক সময় অন্যের বিরক্তির কারন ও হতে পারে

বেশী কথা ও অনেক সময় অন্যের বিরক্তির কারন ও হতে পারে

২. যত যাই হোক সহজে উতিজিত হবেন না

২. যত যাই হোক সহজে উতিজিত হবেন না

অন্যের আচরণ নিয়ন্ত্রিত করার ক্ষমতা আপনার নেই। কিন্তু আপনার নিজের আছে।যারা আপনার সাথে খারপ আচরণ করতে চায় তাদের কে আপনি ভালও বানাতে পারবেন না। কিন্তু হ্যাঁ নিজের আচরণ আপনি চাইলে অবশ্যই নিয়ন্ত্রণ করতে পারবেন। যত যাই হোক উতিজিত হবেন না, মাথা ঠাণ্ডা রাখুন। মাথা গরম হয়ে গেলে আপনি আপনার হিতাহিত বুদ্ধি হারিয়ে ফেলবেন। আপনার বিপরীত জন তার পুরোপুরি ফায়দা নেবে। যারা আপনার সাথে খারপ আচরণ করছে তাদের সাথে ভালও আচরণ করুন। দেখবেন তারও ধিরে ধিরে আপনার সাথে ভালও ব্যাবহার করা শুরু করেছে।

উতিজিত হবেন না, মাথা ঠাণ্ডা রাখুন। মাথা গরম হয়ে গেলে আপনি আপনার হিতাহিত বুদ্ধি হারিয়ে ফেলবেন

উতিজিত হবেন না, মাথা ঠাণ্ডা রাখুন। মাথা গরম হয়ে গেলে আপনি আপনার হিতাহিত বুদ্ধি হারিয়ে ফেলবেন

৩. কিছু ব্যাপার দেখেও না দেখার ভান করুন

৩. কিছু ব্যাপার দেখেও না দেখার ভান করুন

কেউ আপনাকে অপমান করার চেষ্টা করছে, কিম্বা অকারনে ঝামেলা করার চেষ্টা করছে,তাদের এই আচরণ গুলো দেখে ও না দেখার ভাব করুন। কেউ আপনাকে তক্ষনি অপমান করতে পারবে যখন তার কৌশল বা চেষ্টা আপনি দেখবেন। এবং প্রতিক্রিয়া দেখাবেন। যে জিনিষ আপনি দেখতে পাননি যে জিনিষ আপনাকে কিভাবে আঘাত করবে। এমন ভাব করুন জেনো তাদের অবমান আপনি দেখতে পাচ্ছেন না। 

৪. সব কিছু ব্যক্তিগতভাবে নেবেন না

৪. সব কিছু ব্যক্তিগতভাবে নেবেন না

একজন ভাল মানুষ কখনো অন্যকে অপমান করার কথা চিন্তা করে না। এইগুলো শুদু তারাই চিন্তা করে যাদের মন ছোট। তাই কেউ আপনাকে অপমান করলে নিজেকে দোষী মনে করবেন না। বা তার কোন কাজ ব্যক্তিগত ভাবে ভাবে নেবেন না। জানবেন যে সমস্যা তাদের।

৫. বড় হাতিয়ার হলো ভালও ব্যাবহার।

৫. বড় হাতিয়ার হলো ভালও ব্যাবহার।

কেউ খারপ ব্যাবহার করলেই কি আপনাকে তার সাথে খারপ ব্যাবহার করতে হবে? আপনি ত তাদের মত নন। আর তাই তাদের মত আচরণ ও করবেন না। সম্ভব হলে ভালও ব্যাবহার তাদের সাথে করার চেষ্টা করুন। হতে পারে আপনার ভালও ব্যাবহারই তাকে লজ্জায় ফেলে দেবে, এবং তার ভুল বুজতে বুজতে পারবে। 

৬. নিজের কাজ বা দায়িত্ব চেষ্টা নিখুত ভাবে করতে

৬. নিজের কাজ বা দায়িত্ব চেষ্টা নিখুত ভাবে করতে

যদি জানেন যারা অপমান করার সুযোগ খুচ্ছেন তাদের কে আপনার দুর্বলতা বা ত্রুটি খোজ দেবেন না। নিজের কাজ বা দায়িত্ব নিজে করার চেষ্টা করুন। কারন তারা আপনার কোন দোষ খুজে না পেলে আপনার জন্য ব্যাপারটা আপনার জন্য স্বস্তির হবে।   

ধন্যবাদ এতক্ষণ পোস্টটি পড়ার জন্য। আপনার ভালও লাগলে অবশ্যই ফেসবুকের মধ্যমে শেয়ার করবেন।

কোন বিষয় জানা থাকলে কেউ আপনাকে অপমান করতে পারবে না