বাংলাদেশের ১৩ মেধাবী জাপানের তথ্যপ্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান এ চাকরি পেলেন ।

তথ্যপ্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক বলেন জাপানের তথ্যপ্রযুক্তি খাতে দক্ষ জনশক্তি যোগান দেবে বাংলাদেশ, বাংলাদেশের ছেলে মেয়েদের বিশ্বের স্বনামধন্য প্রতিষ্ঠান নিরলস ভাবে তারা কাজ করে যাচ্ছে, এবং সেরাটা দিয়ে যাচ্ছে। সেই দিন আর বেশি দূরে নয় যেদিন বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা সত্যি বিশ্বের দরবারে মাথা উঁচু করে দাঁড়াবে ।

বাংলাদেশের ১৩ মেধাবী জাপানের তথ্যপ্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান এচাকরি পেলেন১৩ জন মেধাবী চাকরি পেলেন, বাংলাদেশ-জাপান আইসিটি ইঞ্জিনিয়ার্স ট্রেনিং প্রোগ্রাম (বি-জেট)অংশ গ্রহণকারীদের মধ্যে থেকে ১৩ জনের চাকরি নিশ্চিত করেছে জাপান ।  

গতকাল বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিল (বিসিসি) ও জাপান ইন্টারন্যাশনালকো-অপারেশন (জাইকা) আয়োজিত বি-জেট ট্রেনিং প্রোগ্রামে অংশ গ্রহণকারীদের মধ্যে সনদবিতরণী অনুষ্ঠানে এই ১৩ তরুণের চাকরি নিশ্চিত করার কথা জানানো হয়।

এর মধ্যে ৯ প্রশিক্ষণার্থী জাপানের প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান মিয়াজাকি থেকে চাকরির সুযোগ পেয়েছেন বলে জানানো হয়। সেখানে তাদেরক বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াশোনা ও ইন্টার্নশিপের পাশাপাশি তারা কাজ করতে পারবেন। এপ্রিল থেকেই তাদের সে সুযোগ হচ্ছে।

এই নয় প্রশিক্ষণার্থী হলেন রফিকুল হাসান, মুনতাসির বিল্লাহ,  মোহাম্মদ রায়হান রুহিন,আরমানুর রহমান, মোহাম্মদ নকিব, ফাহিম ইসলাম মহিপ, হাজেরা মারজিয়া, ইরিন সুলতানা অনি এবং আয়েশা বিনতে সাইদ।

এ ছাড়াও টোকিওতে সারওয়ার আলম ও রতন আলী। হোক্কাইডোতে সুমন কুমার দাস এবং মোজাহিদুল ইসলামের চাকরি দিচ্ছে জাপানি প্রতিষ্ঠান।

তবে আরো তিন প্রশিক্ষণার্থী সাক্ষাৎকার দিয়ে অপেক্ষামান তালিকায় রয়েছেন। এ ছাড়াও ট্রেনিংপ্রোগ্রামে অংশগ্রহণকারী অন্যান্য প্রশিক্ষণার্থীরা জাপানের বেশ কয়েকটি প্রতিষ্ঠানে সাক্ষাৎকার দেবার প্রক্রিয়ায় রয়েছেন।

গতকাল রোববার ওই সনদ বিতরণী অনুষ্ঠানে তথ্যপ্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক জাপানের তথ্যপ্রযুক্তি খাতে দক্ষ জনশক্তি যোগান দেবে বাংলাদেশ।

সনদ বিতরণী অনুষ্ঠানে তথ্যপ্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক

সনদ বিতরণী অনুষ্ঠানে তথ্যপ্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক

তথ্যপ্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক zunaid ahmed palak