পাকিস্তান চেয়ে পিছিয়ে দেশের ইন্টারনেটের গড় গতি

বাংলাদেশে মোবাইল ইন্টারনেটের গড় গতি মাত্র ৫ এমবিপিএস। আর প্রতিবেশী দেশগুলতে . . .

বিশ্বের মোবাইল ফোন অপারেটরদের সংগঠন জিএসএম অ্যাসোসিয়েশন (জিএসএমএ)

বাংলাদেশ কান্ট্রি ও ভারভিউ’ শীর্ষক এক প্রতিবেদনে জানান বাংলাদেশের বর্তমান মোবাইল ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেটের গড় স্পীড তুলনামুক ভাবে পাকিস্তান, ভারত, নেপাল, ভুটান, মিয়ানমারের চেয়ে অনেক পিছিয়ে আছে।

প্রতিবেদনে আরো বলা হয়  বাংলাদেশে এখন মোবাইল ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেটের গড় গতি দক্ষিণ এশিয়ার প্রতিবেশী দেশগুলোর তুলনায় বলতে গেলে অনেক কম। বাংলাদেশে মোবাইল ইন্টারনেটের গড় গতি মাত্র ৫ এমবিপিএস। আর প্রতিবেশী প্রায় সব দেশেই মোবাইল ইন্টারনেটের গড় ১০ এমবিপিএস বা তার চেয়েও বেশি ধরা হয়।

আর এই ব্যাপারে মোবাইল ফোন অপারেটরদের সংগঠন অ্যামটবের মহাসচিব টি আই এম নুরুল কবীর তার বেক্ষায় বলেন দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোর মধ্যে বাংলাদেশে সবচেয়ে বলা চলে দেরিতে চতুর্থ প্রজন্মের (ফোর-জি) ইন্টারনেট সেবা চালু হয়েছে। আর এ প্রতিবেদনের তথ্য-উপাত্তের জন্য ২০১৭ সালের ডিসেম্বর পর্যন্ত সময়কে বিবেচনায় নেওয়া হয়েছে। সুতরাং প্রতিবেদনের ফলাফল এমন হওয়াই স্বাভাবিক।

তবে আমরা মনে করি নেক্সট ইয়ার এ চিত্র পুরোপুরি পাল্টে যাবে। আমরা মনে করি ফোর-জি সেবা চালুর ফলে আগামী বছর বাংলাদেশে ইন্টারনেটের গড় গতির অনেক অনেক উন্নতি হবে। প্রতিবেদনে থ্রি-জি ইন্টারনেটের গতির সঙ্গে অন্য দেশের ফোর-জি ইন্টারনেটের গতির তুলনা হওয়ায় বাংলাদেশ পিছিয়ে পড়েছে।

বর্তমানে দেশ এ জিএসএমএর হিসাবে বাংলাদেশে এখন সাড়ে ৩ কোটি মানুষ প্রকৃতভাবেই ইন্টারনেট ব্যবহার করছেন। অর্থাৎ বাংলাদেশে প্রতি ৫ জনে একজন ইন্টারনেট ব্যবহার করে থাকেন। তবে সরকারি হিসাবে তথ্য মতে বাংলাদেশে ইন্টারনেট ব্যবহারকারীর সংখ্যা মুলুত ৮ কোটি ৮ লাখ।

technology news