পরকীয়ার করায় স্ত্রীর বিরুদ্ধে মামলা করলেন স্বামী।
দেশের খবর।

সাদ্দাম হোসেন দীপু, তিনি গত রবিবার ব্রাহ্মণবাড়িয়ার জ্যেষ্ঠ বিচারিক হাকিম সদর আদালতে স্ত্রী শ্রাবণী বুশরা এশার বিরুদ্ধে মালা দায় করেন। 

আদালতের বিচারক ফারজানা আহমেদ এই মামলাটি গ্রহণ করে। এই মামলার দুই আসামি স্ত্রী শ্রাবণী বুশরা এশা ও তার পরকীয়া প্রেমিক জনাব মুনতাছির ইভানের বিরুদ্ধে সমন জারি করেছেন।

মুলুত এশা ধানমন্ডি এলাকার একটি মেডিকেল কলেজের প্রভাষক। আর মুনতাছির উত্তরা আধুনিক মেডিকেল কলেজের ছাত্র।

এই মামলা সূত্রে দেখা যায়, সাদ্দাম হোসেন দীপু ব্রাহ্মণবাড়িয়া পৌরশহরের উত্তর মৌড়াইল মহল্লার জহিরুল ইসলামের ছেলে। বিএসসি ইঞ্জিনিয়ার ( ইলেক্ট্রিক্যাল) দীপুর সাথে আজ থেকে ২০১৪ সালের ২৮ আগস্ট রেজিস্ট্রি কাবিন করে উত্তর মৌড়াইল মহল্লার বাসিন্দা জেড এম ইমরান আলীর মেয়ে শ্রাবণী বুশরা এশার সাথে বিয়ে বন্ধনে আবদ্ধ হয়। দীপু তার অফিসের কাজে ঢাকার বাইরে গেলে তার স্ত্রী এশার সাথে যোগাযোগ করার জন্য আসামি মুনতাছির তার বাড়িতে প্রায় আসা-যাওয়া করত। 

গত ২০১৮ সালের ২৬ ডিসেম্বর দুপুরে দীপু তার অফিসের কাজে কর্মস্থলে ছিলেন। এদিন এশা ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় তার বাবার বাড়িতে মুনতাছিরের সাথে শারীরিক সম্পর্কে লিপ্ত হয় বলে মামলায় উল্লেখ করা হয়েছে।

এই মামলার বাদীপক্ষের আইনজীবী আরিফুল হক মাসুদ জানান, সাধারণত এই টাইপের মামলা আদালত আমলে নিয়ে তদন্তের নির্দেশ দিয়ে তা খতিয়ে দেখা হয়। তবে কিছুদিন আলোচিত পরকীয়ার ঘটনায় চট্টগ্রামে চিকিৎসক আত্মহত্যার কারণে আদালত এ ঘটনাটিকে খুব গুরুত্ব দিয়ে আসামিদের বিরুদ্ধে সমন জারি করেছেন।

YOUR REACTION?

Facebook Conversations



Disqus Conversations