ইন্দোনেশিয়ায় সংগঠিত ভয়াবহ সুনামির কিছু ধ্বংসাত্মক ছবি।

সারা বিশ্ব।

নিম্নোক্ত ছবিগুলো ইন্দোনেশিয়ায় সংগঠিত ভয়াবহ সুনামির ধ্বংসাত্মক কিছু ছবি।

সুনামি টি প্রায় ১০ ফুট উচু ছিল এবং সেই সময়ে ভূমিকম্প সংগঠিত হয় এবং যার মান রিক্টার স্কেল এ ছিল ৭.৫.

সুনামি টি গত শুক্রবার প্রায় ৭.৫ মাত্রার ভূমিকম্প নিয়ে ইন্দোনেশিয়ার সুলায়েশি উপকূল এ আঘাত আনে।সরকারি তথ্য অনুযায়ী  এখন অব্দি প্রায় ৮৩২ জনের লোকের মৃত্যু হয়েছে এবং অসংখ্য মানুষ এই সুনামির স্বীকার হয়েছে।

এখনো অনেক লাশ আছে যা চিহ্নিত করা সম্ভব হয়নাই,কারন তা প্রায় নষ্ট হয়ে গেছে।National disaster management agency এর সাধারণ সম্পাদক এর বর্নিত তথ্য অনুযায়ী, এখনো অনেক ক্ষতিগ্রস্ত মানুষ কে ত্রান সেবা পৌছানো সম্ভব হয়নি এবং আক্রান্ত লোকের সংখ্যা দিন দিন আরো বৃদ্ধি পাবে।

এই ধ্বংসাত্মক ছবি গুলা সুনামির পরবর্তী অবস্থা তুলে ধরেছে।দালান গুলো ধুমড়ে মুছড়ে গেছে,আক্রান্ত লোক জন প্রিয়জন হারানোর বেদনায় হাহাকার করছে,ক্ষতিগ্রস্ত লোকজন নিজের জীবন বাচানোর জন্য হাহাকার করছে।আক্রান্ত লোকজন কে তাদের প্রয়োজনীয় সেবা প্রদান এর কাজ চলছে,প্রয়োজনীয় খাদ্য,ওষুধ সব তাদের কাছে পৌছানোর ব্যবস্থা করা হচ্ছে।

কোথায় গেল পালু শহরের হোটেল টি!

কোথায় গেল পালু শহরের হোটেল টি!

উদ্ধারকারীরা এডা নামক একজন খাদ্য বিক্রেতাকে রেস্টুরেন্ট থেকে উদ্ধার করল।

উদ্ধারকারীরা এডা নামক একজন খাদ্য বিক্রেতাকে রেস্টুরেন্ট  থেকে উদ্ধার করল।

মেডিকেল টিমের লোকেরা হসপিটালের বাইরে আক্রান্তদের সেবা দিচ্ছে।

মেডিকেল টিমের লোকেরা হসপিটালের বাইরে আক্রান্তদের সেবা দিচ্ছে।

লোকেরা উদ্বাসন এর জন্য মুটিয়ারা আল জুফরি নামক এয়ারপোর্ট এ এসেছেন।

লোকেরা উদ্বাসন এর জন্য মুটিয়ারা আল জুফরি নামক এয়ারপোর্ট এ এসেছেন।

একজন আক্রান্ত মানুষকে মিলিটারি এয়ারক্রাফট দ্বারা উদ্ধার হলো।

একজন আক্রান্ত মানুষকে মিলিটারি এয়ারক্রাফট দ্বারা উদ্ধার হলো।

মহিলাটি তার প্রিয়জন হারানোর বেদনায় কাতর হয়ে আছেন।

মহিলাটি তার প্রিয়জন হারানোর বেদনায় কাতর হয়ে আছেন।

বাইতুররাহাম মসজিদ।

বাইতুররাহাম মসজিদ।

লোকেরা তাদের প্রিয় জিনিস বাঁচাতে কাতর।

লোকেরা তাদের প্রিয় জিনিস বাঁচাতে কাতর।

মানুষটি তার হারিয়ে যাওয়া ঘর খুজে বেড়াচ্ছে।

মানুষটি তার হারিয়ে যাওয়া ঘর খুজে বেড়াচ্ছে।

অস্থায়ী হসপিটালে আক্রান্ত মহিলা।

অস্থায়ী হসপিটালে আক্রান্ত মহিলা।