ইন্টারনেট ব্যবহারকারীদের পাশে আছি-অর্থমন্ত্রী

অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত বলেন. . .

২০১৮-১৯ অর্থবছরের বাজেটে ইন্টারনেট ব্যবহারের ওপর ধার্যকৃত ভ্যাট বা (মূল্য সংযোজন কর) কমানো হয়েছে। এটি ১৫ শতাংশ থেকে কমিয়ে ৫ শতাংশ আনা হয়েছে ।এর ফলে ১ জুলাই থেকে গ্রাহক পর্যায়ে ইন্টারনেট খরচ কমার কথা। কিন্তু দুঃখের বিষয় কোনো অপারেটর এটি বাস্তবায়ন করেনি।

আর এই প্রসঙ্গে অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত বলেন, আমি ইন্টারনেট ব্যবহারকারীদের পাশে আছি। অপারেটরা এটি বাস্তবায়ন না করলে আমরা যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ করতে বাধ্য হবো। আজ বুধবার (৪ জুলাই) অর্থমন্ত্রণালয়ে সভা কক্ষে তিনি এ কথা বলেন।

এই বছরে বাজেটে ইন্টারনেট ব্যবহারের ওপর বর্তমান সরকার ধার্যকৃত ভ্যাট কমিয়েছে। এটি ১০ শতাংশ কমানোর ফলে ১০০ টাকায় যে ১৫ টাকা গ্রাহককে ভ্যাট দিতে হতো, চলতি মাস থেকে তা ৫ টাকা দিতে হবে গ্রাহককে। কিন্তু মোবাইল অপারেটরসহ ইন্টারনেট সেবাদানকারী কোম্পানিগুলো এখনো তা বাস্তবায়ন করেনি।

আর এই বিষয় এ অর্থমন্ত্রী বলেন, বাস্তবায়ন না করিলে তাদের (মোবাইল অপারেটর এবং ইন্টারনেট সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠান) বিরুদ্ধে পদক্ষেপ নেয়া সিধান্ত হবে। সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষই তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিবে।

প্রসঙ্গত, ইন্টারনেট থেকে ভ্যাট, শুল্ক ও সারচার্জ বাবদ গ্রাহকের খরচ হয় ২১.৭৫ শতাংশ অর্থ। এর মধ্যে ভ্যাট ১৫ শতাংশ ধরা হয়। এসব থেকে সরকারের বছরে আয় হয় এক হাজার ১০০ কোটি টাকা। ২০১৮-১৯ অথর্বছরের বাজেটে এটি কমিয়ে তা ৫ শতাংশ করেছে বর্তমান সরকার।

bangla news today