ইন্টারনেট বন্ধের সিদ্ধান্ত পরিবর্তন করলেন সরকার

এমত অবস্থায় প্রশ্ন ফাঁস ঠেকাতে আজ থেকে ২৪ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত পরীক্ষার দিন আড়াই ঘণ্টা করে ইন্টারনেট সাময়িকভাবে বন্ধের সিদ্ধান্ত নিয়েছিল সরকার।

এসএসসি পরীক্ষা সময় ইন্টারনেট আড়াই ঘণ্টা বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত আজ পরিবর্তন হয়েছে। আজ সোমবার সকালে বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন (বিটিআরসি) থেকে ইন্টারনেট সেবা স্বাভাবিক রাখতে সংশ্লিষ্ট সকলকে নির্দেশনা দেওয়া হয়।

এই ব্যাপারে খবরটি নিশ্চিত করছেন বিটিআরসিচেয়ারম্যান শাহজাহান মাহমুদ, তিনি জানান  ইন্টারনেট নিয়ে দেওয়া আগের সিদ্ধান্ত পরিবর্তন করা হয়েছে।

সরকারের ভিবিন্ন পদক্ষেপের পরও প্রশ্ন ফাঁস হওয়া থামানো যায়নি। গতকাল রোববার তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি(আইসিটি) বিষয়ের পরীক্ষার আগে ইন্টারনেটের গতিও কমানো হয়েছিল, কিন্তু তাতে কোন কাজ হয়নি। যা হওয়ার তাই হয়েছে আগাম ঘোষণা দিয়ে আইসিটির প্রশ্নপত্র ফাঁস হয়েছে। এ নিয়ে শুরু থেকে সাতটি বিষয়ের প্রশ্নপত্রই ফাঁস করা হলো।

এমত অবস্থায় প্রশ্ন ফাঁস ঠেকাতে আজ থেকে ২৪ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত পরীক্ষার দিন আড়াই ঘণ্টা করে ইন্টারনেট সাময়িকভাবে বন্ধের সিদ্ধান্ত নিয়েছিল সরকার। এতে ইন্টারনেট ব্যবহারকারীদের মধ্যে তীব্র ক্ষব ও প্রতিক্রিয়া দেখা দেয়। এর ফলে ইন্টারনেট স্বাভাবিক রাখার এ সিদ্ধান্ত পালটাতে হলো সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের।

জানা যায় বিটিআরসির সর্বশেষ পরিসংখ্যান অনুযায়ী, বাংলাদেশে বর্তমানে ইন্টারনেট ব্যবহারকারী ৮ কোটির বেশি। এর মধ্যে সাড়ে ৭ কোটি মোবাইল এ ইন্টারনেট ব্যবহারকারী, বাকি ৫০ লাখ ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেট ব্যবহার করেন।

দেশ এ এর আগে ধারাবাহিক ভাবে জঙ্গি হামলা ও হত্যা কাণ্ডের প্রেক্ষাপটে জঙ্গিদের যোগাযোগের পথ বন্ধ করার কারণ দেখিয়ে ২০১৫ সালের১৮ নভেম্বর দেড় ঘণ্টা ইন্টারনেট বন্ধ রাখা হয় সারা বাংলাদেশে। পরে ইন্টারনেট চালু হলেও ২২ দিন বাংলাদেশে ফেসবুকসহ সামাজিক যোগাযোগের বেশ কয়েকটি অ্যাপ ব্যবহারের সুযোগ বন্ধ রাখর সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেন সরকার।

 

ইন্টারনেট বন্ধের সিদ্ধান্ত পরিবর্তন করলেন সরকার