ট্রাম্পের উদ্ধত্যপূর্ণ আচরণ।

বিশ্ব খবর

মেক্সিকো সীমান্তে দেয়াল দেওয়া নিয়ে বৈঠকে ডেমোক্রেটদের সঙ্গে ট্রাম্প অত্যন্ত উদ্ধত্যপূর্ণ আচরণ করেছেন।গত প্রায় তিন সপ্তাহ ধরে চলা অচলাবস্থা নিয়ে আলোচনা সময় ট্রাম্প বলেন এই আলোচনা করা আর সময় নষ্ট করা একই কথা। বর্তমানে যুক্তরাষ্ট্রে সরকারি কর্মচারীরা বেতন ছাড়া কাজ করছেন কারণ মেক্সিকো সীমান্তে দেয়াল দেয়া নিয়ে ট্রাম্পের কথায় কেউ রাজি হচ্ছে না তাই ডোনাল্ড ট্রাম্প এই মুহূর্তে সকল সরকারি কর্ম কার্যত বন্ধ করে রেখেছেন। সরকারি কর্মচারীদের কে বিনা বেতনে কাজ করতে বাধ্য করছেন। যে কারণে বেশির ভাগ সরকারি কর্মচারী অসুস্থতা দেখে বর্তমানে ছুটিতে আছেন। এই অবস্থায় সরকারি কাজকর্ম চালু ও মেক্সিকো সীমান্তে দেয়াল দেওয়া নিয়ে বৈঠকে বসলে ডেমোক্রেটরা দেয়ালের খরচ দিতে রাজি না হওয়ায় ট্রাম্পটেবিল চাপড়ে বলে ওঠেন দিস ইজ আ অফ টাইম। এ বলে ট্রাম্প সাথে সাথে বৈঠকস্থল ত্যাগ করেন। আর কিছুক্ষণ পরেই সাংবাদিকরা টেবিল চাপড়ে বেরিয়ে আসার কথা জিজ্ঞেস করলে ট্রাম্প বলেন আমি টেবিল চাপড়ায়নি। আমি বাই বাই বলে বেরিয়ে এসেছি।

ডেমোক্রেটরা সাংবাদিকদের বলেন আমরা সীমান্তে অত্যাধুনিক ক্যামেরা ও অস্ত্রশস্ত্র সমন্বিত ফোর্স দিয়ে সীমান্ত পাহারা দিতে বলেছিলাম। যা দেয়াল দেওয়া থেকে অনেক কম খরচের এবং বাস্তবসম্মত সিদ্ধান্ত।বর্তমানে যেখানে আমরা প্রতিরক্ষা খরচ দিতে হিমশিম খাচ্ছি সেখানে ৭০০ বিলিয়ন ডলার দিয়ে দেয়াল নির্মাণ করা বোকামি ছাড়া আর কিছুই নয়।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প গতকাল টেলিভিশনে দেয়া জাতির উদ্দেশ্যে তার প্রথম ভাষণে মেক্সিকো সীমান্তে দেয়াল দেয়ার উপর সবচেয়ে গুরুত্ব দিয়েছেন। তিনি বলেন মেক্সিকো সীমান্তে দেয়াল দেওয়া এই মুহূর্তে দেশের সবচেয়ে দরকারি কাজ। তিনি মেক্সিকো সীমান্তের বর্তমান অবস্থাকে ক্রাইসিস মোমেন্ট বলে অভিহিত করেন। ট্রাম্পের মতে যুক্তরাষ্ট্রে আসা হেরোইনের সিংহভাগই মেক্সিকো থেকে আসে। ট্রাম্প আরো বলেন মেক্সিকো থেকে ক্রিমিনালরা যুক্তরাষ্ট্রে এসে অপরাধ করে আবার মেক্সিকোতে ফিরে যায়। এমতাবস্থায় এই দেয়াল দেওয়া অত্যন্ত জরুরী।

মেক্সিকান সীমান্তে দেয়াল দেওয়ার কথা ট্রাম্পের নির্বাচনী ইশতেহারে ছিল। এই দেয়াল দিতে প্রায় ৭০০মিলিয়ন ডলার খরচ হবে। যদিও এই মুহূর্তে প্রতিরক্ষা খরচ দিতেই যুক্তরাষ্ট্র হিমশিম খাচ্ছে।